Home / Top News / samajerkatha / এসএ গেমসে বাংলাদেশ নারী বাস্কেটবল দলের অধিনায়ক যশোরের মেয়ে শারমিন

এসএ গেমসে বাংলাদেশ নারী বাস্কেটবল দলের অধিনায়ক যশোরের মেয়ে শারমিন

 টিমের সাফল্যের জন্য দোয়া কামনা

এসএ গেমসে বাংলাদেশ নারী বাস্কেটবল দলের অধিনায়ক যশোরের মেয়ে শারমিনইমরান হোসেন পিংকু
ছোটবেলা থেকে খেলার প্রতি ছিলো অসম্ভব ভালোবাসা। আর সেই ভালোবাসার টানে দুই বছর আগে গোলাকৃতি, কমলা রঙের বাস্কেটবল হাতে তুলে নেয় শারমিন খাতুন। স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন জাতীয় নারী বাস্কেট দলে জায়গা করে নেয়ার। যে চিন্তা সেই কাজ। শুরু করেন কঠোর পরিশ্রম। আর এই পরিশ্রমের ফলে মাত্র দুই বছরে জায়গা করে নিলেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী বাস্কেটবল দলে। জাতীয় দলে সুযোগ পেতে না পেতেই শারমিন খাতুনের ডাক এসেছে সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের বাংলাদেশ জাতীয় নারী বাস্কেটবল দলের হয়ে খেলার। এসএ গেমসে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবেন শারমিন। শারমিনের নেতৃত্বে দল আজ (মঙ্গলবার) সকাল ১০টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নেপালের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ত্যাগ করবে। শারমিন খাতুন যশোর পালবাড়ী ভাস্কর্য মোড়ের মৃত জয়নুল হক ও মাতা বেবি বেগমের মেয়ে। তিনি যশোর সরকারি মহিলা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী।
শারমিন খাতুন বলেন, ‘ছোটবেলা থেকে খেলার প্রতি ভালোবাসা ছিলো। স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে হ্যান্ডবল খেলেছি বিভিন্ন সময়ে। মা-বাবার ইচ্ছা ছিলো আমি খেলাটা নিয়মিত করি। কিন্তু তিন বছর আগে বাবার মৃত্যুতে আমার সব স্বপ্ন যেন থেমে যাচ্ছিল। এ সময় অর্থের অভাবে খেলাধুলা ও লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়। তখন মা অন্যদের বাসাবাড়িতে কাজ শুরু করেন। আবারও মায়ের অনুপ্রেরণায় শুরু করি হ্যান্ডবল খেলা। দুইবছর আগে খেলার সুবাদে জেলা হ্যান্ডবল কোচ রায়হান স্যারের (রায়হান সিদ্দিকী; বাংলাদেশ বাস্কেটবল ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য) সাথে বাস্কেটবল খেলা নিয়ে কথা হয়। তখন রায়হান স্যার আমার সম্পর্কে সব শুনে তার একাডেমি এপিক বাস্কেটবলে খেলার সুযোগ করে দেন। তখন থেকে শুরু করি কঠোর পরিশ্রম।’
তিনি আরো বলেন, ‘চলতি বছরের জুন মাসে বাংলাদেশ বাস্কেটবলের ছয় মাসের ক্যাম্পে ডাক পড়ে। ক্যাম্পে উন্নতমানের প্রশিক্ষণ নেয়া শুরু করি। পরে এসএ গেমসে খেলার জন্য ডাক পাই। সবচেয়ে আনন্দের ব্যাপার জীবনের প্রথম জাতীয় নারী বাস্কেটবল দলের অধিনায়কের মত কঠিন দায়িত্ব পালন করবো। দেশত্যাগের আগে টিমের জন্য যশোরবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।’
বাংলাদেশ বাস্কেটবল ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ও জেলা কোচ রায়হান সিদ্দিকী বলেন, ‘যারা পরিশ্রমী, তাদের জন্যে কোনোকিছুই জয় করা অসাধ্য কিছু নয়। সেটা আরও একবার প্রমাণ করে দিলো যশোরের সন্তা শারমিন খাতুন। মাত্র দুই বছরে জাতীয় নারী বাস্কেটবল দলে জায়গা করে নেয়া; শারমিনের মতো এমন নজির খুব কম সংখ্যক মেয়ের আছে। শারমিন যশোরের ঘরোয়া লিগসহ ঢাকা লিগের হয়ে খেলেছে। আশা করা যায় সে দেশবাসীকে ভালো কিছু উপহার দেবে।’


Source link

About Samajer Katha

Check Also

নারী নির্যাতন প্রতিরোধে যশোরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

‘নারী ও শিশু ধর্ষণ এবং সকল সহিংসতার বিরুদ্ধে আমরা’ এই প্রতিপাদ্যে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ …

বিজিএমইএ প্রতিনিধি দলের ওয়াটার বাস পরিদর্শন

চট্টগ্রামে কর্ণফুলী নদীর শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দ্রুতগতি সম্পন্ন ওয়াটার বাস সার্ভিস পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ গার্মেন্টস অ্যাকসেসরিজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *